এন্ড্রয়েড ১০ এর সেরা ১০ ফিচার সমূহ

কিছুদিন আগে গুগল তাদের এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম এর সর্বশেষ ভার্সন এন্ড্রয়েড কিউ এর অফিশিয়াল নামকরণ করেছে। অনেকেই হয়তো জানেন যে এবারে তারা কোন মিষ্টান্নের নামে এন্ড্রয়েড ওএস এর নাম না রেখে সরাসরি এর নাম দিয়েছে এন্ড্রয়েড ১০।


যদিও বেটা প্রোগ্রাম এর কল্যাণে নতুন এই এন্ড্রয়েড ১০ এর বেশিরভাগ ফিচার সম্পর্কেই আপনারা ইতিমধ্যে অবগত আছেন, তার পরেও অফিশিয়ালি গুগল যেহেতু গতকাল তাদের এন্ড্রয়েড ১০ এর গুরুত্বপূর্ণ ফিচারগুলো ওয়েবসাইটে দিয়েছে সেই হিসেবে এক পলকে ফিচারগুলো দেখে নেয়াই যায়। 

চলুন এক নজরে এন্ড্রয়েড ১০ এর সেরা দশ ফিচার সম্পর্কে জেনে নেই


  1. লাইভ ক্যাপশনঃ এই ফিচারটির মাধ্যমে এক ট্যাপের মাধ্যমেই আপনার ফোনে প্লে হতে থাকা কোন মিডিয়া, যেমন- গান, ভিডিও, পডক্যাস্ট এমনকি আপনার রেকর্ড করা ভয়েসের ক্যাপশন (সাবটাইটেল) দেখতে পাবেন। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে এর জন্য ফোনকে ইন্টারনেটের সাথে কানেক্টেড থাকতেও হবে না। 
  2. স্মার্ট রিপ্লাইঃ এটিকে “সাজেস্টেড রিপ্লাই” ও বলা যায়। এই ফিচারটি মেসেজ অনুযায়ী আপনাকে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে রিপ্লাই সাজেস্ট করবে যেন আপনাকে আর টাইপ করতে না হয় কিংবা কোন একশন সহজেই নিতে পারেন। যেমনঃ আপনাকে মেসেজে কোন বন্ধু ডিনারে আমন্ত্রণ জানালে এটি নোটিফিকেশন প্যানেলে আপনাকে হয়তো গুগল ম্যাপ্স এ লোকেশন দেখার কিংবা ক্যালেন্ডারে ইভেন্ট সেট করার সাজেশন দিবে! 
  3. সাউন্ড এমপ্লিফায়ারঃ এই ফিচার ব্যবহার করে আপনার সিস্টেম সাউন্ড কে বুস্ট করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে এটি আপনার ব্যাকগ্রাউন্ড নয়েজ ও পারিপার্শ্বিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে নয়েস রিমুভ করে আপনি যেন ভালো শুনতে পান সে ব্যবস্থা করে দিবে। 
  4. উন্নত জেশ্চারঃ ন্যাভিগেশন জেশ্চার সুবিধা এন্ড্রয়েড পাই তে আসলেও এখন এটাকে আরো উন্নত ও সহজ করা হয়েছে। 
  5. ডার্ক থিমঃ এন্ড্রয়েড ১০ এর সবচেয়ে বড় পরিবর্তনই হলো এই সিস্টেমওয়াইড ডার্ক থিম। বেশ কিছুদিন ধরেই গুগল তাদের নিজেদের অ্যাপগুলোতে ডার্ক থিম যুক্ত করে আসছিলো। এবার এন্ড্রয়েড ১০ এর মাধ্যমে তাই পুরো ওএস কেই ডার্ক মোডে নিয়ে নেয়া যাবে। 
  6. প্রাইভেসি কন্ট্রোলঃ প্রাইভেসি কন্ট্রোলকে আরো সহজ করার জন্য সেটিংস মেন্যুতে প্রাইভেসি নামক আরেকটি সাবমেন্যু যুক্ত করা হয়েছে। তাছাড়া এড টার্গেটিং অফ করার ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। 
  7. সিউক্যুরিটি আপডেটঃ আপডেট ব্যবস্থাকে এখন আরো উন্নত করা হয়েছে। সিক্যুরিটি আপডেট এর মতো জরুরী আপডেটগুলো এখন গুগল প্লে স্টোরের অন্যান্য অ্যাপ এর মতোই আপডেট করা যাবে। মজার ব্যাপার হচ্ছে অ্যাপ এর মতো আপডেট হওয়ায় ফোন রিস্টার্ট দেয়ারও কোন দরকার হচ্ছে না। 
  8. ফোকাস মোডঃ এর মাধ্যমে মনোযোগে কিংবা কাজে ব্যাঘাত ঘটায় এমন অ্যাপগুলোকে পজ করে রাখতে পারবেন। 
  9. ফ্যামিলি লিঙ্কঃ বাচ্চাদেরকে নিজের ফোন ব্যবহার করতে দেয়ার ক্ষেত্রে অবিভাবকদের সজাগ থাকতে হয়। আর সে কাজকে সহজ করতে এখন চাইলে বাচ্চাদের জন্য স্ক্রিন টাইম সেট করে দেয়া, অ্যাপ কিংবা কন্টেন্ট ব্লক করে দেয়া সহ অনেক কাজ করা যাবে। 
  10. লোকেশন কন্ট্রোলঃ কোন অ্যাপকে জিপিএস কিংবা লোকেশন এর পার্মিশন দেয়ার ব্যাপারটি এখন আরো নিয়ন্ত্রিত করা হয়েছে। এখন আপনি চাইলেই কোন অ্যাপকে লোকেশন পারমিশন পার্মানেন্টলি কিংবা স্থায়ীভাবে দিতে পারবেন। আবার শুধু অ্যাপ চালু থাকা অবস্থায়ই সেটি লোকেশন ব্যবহার করতে পারবে সে ব্যবস্থাও করতে পারবেন। 
কনটেন্টটি পড়ে এন্ড্রয়েড ১০ সম্পর্কে আপনার মতামত কি তা আমাদেরকে জানান কমেন্ট করে। 


Related Posts